অল্পের জন্য ধরা খাননি বাংলাদেশের চার ক্রিকেটার - Lakshmipur News | লক্ষীপুর নিউজ | ২৪ ঘন্টাই সংবাদ

Breaking


Post Top Ad

Responsive Ads Here

Post Top Ad

Saturday, December 23, 2017

অল্পের জন্য ধরা খাননি বাংলাদেশের চার ক্রিকেটার

উগান্ডায় টি-টোয়েন্টি লিগ খেলতে গিয়ে কী বিপাকেই না পড়েছেন পাকিস্তানের ২০ ক্রিকেটার। উগান্ডার রাজধানী কাম্পালায় আটকা পড়ে সাঈদ আজমল, ইয়াসির হামিদ, ইমরান ফরহাতের মতো ক্রিকেটারদের এখন দেশে ফেরাই দায়! একই বিপদে পড়তে পারতেন বাংলাদেশের কয়েকজন ক্রিকেটারও। কিন্তু অল্পের জন্য ধরা খাননি তাঁরা।

উগান্ডা ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশন আয়োজিত আফ্রো টি-টোয়েন্টি লিগ খেলতে গিয়েছিলেন পাকিস্তানের ক্রিকেটাররা। সেখানে পৌঁছে শোনেন, আর্থিক সমস্যায় পুরো লিগই বাতিল করে দিয়েছে আয়োজকেরা। দেশটিতে দুদিন অলস সময় কাটিয়ে নিজেদের পাওনা ৫০ শতাংশ টাকা দাবি করেন পাকিস্তানি ক্রিকেটাররা। জবাবে তাঁরা যা শুনলেন, তাতে ছেড়ে দে মা কেঁদে বাঁচি অবস্থা! টুর্নামেন্টের প্রধান পৃষ্ঠপোষক প্রতিষ্ঠান পিছু হটায় পাওনা টাকা তো পাওয়া যাবেই না, দেশে ফেরা নিয়েও জেগেছে সংশয়। খেলোয়াড়দের ফেরার টিকিট বাতিল করা হয়েছে, ট্রাভেল এজেন্সিকে নিষিদ্ধ করা হয়েছে।
একই বিপাকে পড়তে পারতেন শাহাদাত হোসেন, এনামুল হক জুনিয়র, নাজমুল হোসেন মিলন, সৈকত আলীদের মতো বাংলাদেশের ক্রিকেটাররাও। তাঁরাও যেতে চেয়েছিলেন উগান্ডার এই লিগ খেলতে। বিসিবি অনাপত্তিপত্র (এনওসি) না দেওয়ায় শেষ পর্যন্ত যাওয়া হয়নি। আজ সন্ধ্যায় সেই লিগ নিয়ে শাহাদাত বললেন, ‘ওখানে টাকাপয়সা খারাপ ছিল না। টাকা দিলে না খেলার কী আছে? আমাদের কাছে প্রস্তাবটা আকর্ষণীয় মনে হয়েছিল। বসে ছিলাম। ভাবলাম বাইরে সুযোগ যখন এল, যাই খেলে আসি। কিন্তু বিসিবি অনুমতি দেয়নি।’
পাকিস্তানের ক্রিকেটারদের ভোগান্তির বিষয়টি প্রতিবেদকের কাছ থেকে শুনে রীতিমতো আঁতকে উঠলেন শাহাদাত, ‘এই ঘটনা! বিসিবি আমাদের বলছিল অনুমতি দেওয়া হবে না। তারপরও যদি সেখানে যাও পাঁচ বছরের জন্য নিষিদ্ধ করা হবে। বিসিবি তো জানে কোনটা বৈধ আর কোনটা অবৈধ। এখন সব দেশই চায় টি-টোয়েন্টি লিগ করতে। যাওয়ার অনুমতি পাইনি, অনেক ভালো হয়েছে।’
খেলোয়াড়েরা অনুমতি চাইতে গেলে আইসিসিতে যোগাযোগ করে বিসিবি। উগান্ডার লিগ নিয়ে আইসিসির কাছ থেকে নেতিবাচক বার্তা পাওয়ায় বিসিবি অনুমতি দেয়নি বাংলাদেশের খেলোয়াড়দের। লিগ খেলতে না পারায় স্বাভাবিকভাবেই খারাপ লাগার কথা। কিন্তু শেষ পর্যন্ত সিদ্ধান্তটা শাপে বর হওয়ায় খুশি এনামুল জুনিয়র, ‘বিসিবি আমাদের জানিয়েছিল, এটা অবৈধ লিগ। পরে দেখলাম না গিয়ে ভালোই হয়েছে। ওদের পেমেন্ট ইস্যু নিয়ে ঝামেলা আছে। আইসিসিও নাকি বিসিবিকে জানিয়েছে, সেখানে যাওয়া ঠিক হবে না। এ কারণে আর যাওয়া হয়নি।’

Post Top Ad

Responsive Ads Here