জেনে নিন নামাজ ত্যাগকারীর ভয়াবহ পরিণতি - Lakshmipur News | লক্ষীপুর নিউজ | ২৪ ঘন্টাই সংবাদ

Breaking


Post Top Ad

Responsive Ads Here

Post Top Ad

Friday, December 29, 2017

জেনে নিন নামাজ ত্যাগকারীর ভয়াবহ পরিণতি

নামাজ ফরজ হওয়া সত্ত্বেও যারা নামাজ ত্যাগ করবে, তাদের জন্য রয়েছে দুনিয়া ও আখিরাতে পদে পদে লাঞ্ছনা, অসহায়ত্ব, কষ্ট এবং কঠিন শাস্তি। যার কিছু তুলে ধরা হলো-

০১. দুনিয়ার জীবনে-
ক. আল্লাহ তাআলা দুনিয়ার জীবনে সবকিছু থেকে বরকত কেড়ে নিবে।
খ. নামাজ ত্যাগকারীর চেহারায় কোনো নূর থাকবে না।
গ. আল্লাহর পক্ষ থেকে কোনো আমলের পুরস্কার পাবে না।
ঘ. অন্য কোনো লোক তার জন্য দোয়া করলে, সে দোয়া তার কোনো কাজে আসবে না।
ঙ. দুনিয়ার সকল সৃষ্টিজীবের নিকট সে হবে ঘৃণিত ব্যক্তি।
০২. মৃত্যুকালীন অবস্থা-
ক. বেনামাজি অপদস্থ-লাঞ্ছিত হয়ে মৃত্যু বরণ করবে।
খ. প্রচণ্ড ক্ষুধার্ত অবস্থায় মৃত্যু বরণ করবে।
গ. এমন পিপাসিত হয়ে মৃত্যুবরণ করবে যে, দুনিয়ার সব সাগরের পানি পান করলেও তার পিপাসা মিটবে না।

০৩. কবরের অবস্থা-
ক. বেনামাজির কবরকে এমন সংকীর্ণ করা হবে যে, এক পাঁজরের হাড় অন্য পাঁজরে ঢুকে পড়বে।
খ. কবরে আগুন জ্বালিয়ে দেয়া হবে, যে আগুনের আঙরা বা জ্বলন্ত কয়লার ওপর রাত-দিন পলটি খেতে থাকবে।
গ. কবরে এমন এক বিষাক্ত সাপ নিযুক্ত করা হবে। এ সাপটি দৈনিক পাঁচ বার বিষাক্ত ছোবল দিবে। ফজরের নামাজ তরক করার কারণে ফজর থেকে জোহর পর্যন্ত, জোহরের নামাজ তরক করার কারণে জোহর থেকে আছর পর্যন্ত, এভাবে ইশা পর্যন্ত। এর ছোবল এতটাই বিষাক্ত হবে যে, প্রতি ছোবলে বেনামাজি ৭০ গজ মাটির নিচে চলে যাবে।

০৪. কিয়ামতের দিবসের অবস্থা-
ক. আগুনের কয়লার উপর চেহারাকে টানা-হেঁচড়া করা হবে।
খ. হিসাবের সময় আল্লাহ তাআলা গজবের দৃষ্টি তাকাবে যার ফলে তার চেহারার গোস্ত খসে পড়ে যাবে।
গ. হিসাব হবে কঠিন। অতপর জাহান্নামের দিকে টেনে নিয়ে যাওয়ার নির্দেশ দেয়া হবে।

Post Top Ad

Responsive Ads Here